Connect with us

বিদেশ

Israel Palestine War: প্রকাশ্যে শত্রুতা, আড়ালে সমর্থন হামাসকে, নেতানইয়াহুই কি যুদ্ধ ডেকে আনলেন? প্রশ্ন ইজরায়েলেই

Published

on

নয়াদিল্লি: গত এক সপ্তাহ ধরে ইজরায়েল প্যালেস্তাইন যুদ্ধের দিকেই নজর আটকে গোটা বিশ্বের। পরিসংখ্যান বলছে, আটদিনের যুদ্ধে এখও পর্যন্ত প্রাণ গিয়েছে ৩ হাজার ২০০ জনের। আহতের সংখ্যা ১০ হাজারের বেশি। কোটি কোটি টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়ে গিয়েছে। যুদ্ধের নেপথ্যকারণ খুঁজতে গিয়ে পরস্পরকে দোষারোপ করছে দুই দেশই। কিন্তু দেশের অন্দরেই তীব্র সমালোচনার মুখে পড়ছেন ইজরায়েলের প্রধানমন্ত্রী বেঞ্জামিন নেতানইয়াহু (Benjamin Netanyahu)। আগে থেকে সতর্কবার্তা পাওয়ার পরও কৈন মোকাবিলায় প্রস্তুত ছিল না তাঁর সরকার, সেই প্রশ্ন যেমন উঠছে, তেমনই নেতানইয়াহুর অভিসন্ধি নিয়েও প্রশ্ন তুলছে ইজরায়েলের বিভিন্ন পত্র-পত্রিকা। রাজনৈতিক ভাবে কোণঠাসা হয়েই নেতানইয়াহু সরকার চোখের সামনে সবকিছু দেখেও নির্বিকার থেকেছে এবং পরবর্তী নির্বাচনকে সামনে রেখেই যুদ্ধ ডেকে এনে, জাতীয়বাদের জিগির তুলছে বলে উঠছে অভিযোগ। (Israel Palestine War)

৭ অক্টোবর সকালে গাজা থেকে প্যালেস্তিনীয় সংগঠন হামাসই প্রথম ইজরায়েলের উদ্দেশে রকেট ছোড়ে। কিন্তু আচমকাই হামলা করেনি হামাস, বরং গাজায় সীমান্ত ঘেঁষে, ইজরায়েলি সেনার চোখের সামনেই যুদ্ধের মহড়া হয়েছে, প্রশিক্ষণ চলেছে বলে বিভিন্ন সংবাদমাধ্যম সূত্রে উঠে এসেছে। এমনকি দেশের গুপ্তচর সংস্থা মোসাদের তরফে বার বার সতর্ক করা হলেও, নেতানইয়াহু সরকার নির্বিকার থেকেছে বলে দাবি শোনা যাচ্ছে। দেশের নাগরিকদের একাংশের অভিযোগ, এই এক সপ্তাহে যা ক্ষয়ক্ষতি, প্রাণহানি হয়েছে, তা অপূরণীয়। এই ক্ষত সারতে আগামী কয়েক দশক সময় লাগতে পারে। আর তাতেই নেতানইয়াহুর অভিসন্ধই নিয়ে প্রশ্ন তুুলছেন তাঁরা। 

একাধিক বার মুখোমুখি সংঘর্ষে জড়ালেও, প্রকাশ্যে তাদের সন্ত্রাসবাদী সংগঠন হিসেবে দাগিয়ে দিলেও, হামাসের বিরুদ্ধে এ যাবৎ মোটামুটি সহনশীল আচরণই দেখিয়েছে নেতানইয়াহু সরকার। কারণ প্যালেস্তাইনের অভ্যন্তরীণ রাজনীতিতে বাকি রাজনৈতিক দলগুলির সঙ্গে হামাসের সম্পর্ক তেমন ভাল নয়। তাই প্যালেস্তাইনের অন্দরে অস্থিরতা তৈরি করতেই হামাসের বিরুদ্ধে কড়া পদক্ষেপ করা থেকে নেতানইয়াহু সরকার বিরত থেকেছে বলে মত সে দেশের রাজনীতিক বিশ্লেষকদের একাংশের। ২০১৯ সালে দলীয় বৈঠকে হামাসকে সমর্থন জোগানোর কথা বলেছিলেন নেতানইয়াহু। তাঁর বক্তব্য ছিল, “প্যালেস্তাইনকে উৎখাত করতে গেলে হামাসের হাত শক্ত করতে হবে। অর্থসাহায্য় দিতে হবে তাদের। গাজায় বসবাসকারী প্যালেস্তিনীয় এবং জুদেয়া ও সামারিয়ায় বসকারী প্যালেস্তিনীয়দের মধ্যে বিভাজন ঘটাতে হলে, এই কৌশল নিয়েই এগোতে হবে।”

আরও পড়ুন: Joe Biden: যুদ্ধে শিশুদের শিরচ্ছেদ! ভুয়ো খবর ছড়ানোয় অভিযুক্ত খোদ বাইডেন, সাফাই দিল হোয়াইট হাউস

তাই এই যুদ্ধ পরিস্থিতির জন্য নেতানইয়াহুর সেই অবস্থান নিয়েই প্রশ্ন তুলছেন বিরোধী থেকে রাজনৈতিক সমালোচকরা। গাজায় হামাসের উপস্থিতি জেনেও, সেখান থেকে সেনা সরিয়ে ওয়েস্ট ব্যাঙ্কে নিয়ে যাওয়ার যৌক্তিকতা নিয়েও প্রশ্ন উঠছে। শোনা যাচ্ছে, এ বছর সেপ্টেম্বর মাস পর্যন্ত গাজার কাছে ইজরায়েলি সেনার মাত্র দুই ব্যাটেলিয়ন মোতায়েন ছিল। গত সপ্তাহে যুদ্ধের ঠিক আগে, গাজা সীমান্ত থেকে সেনা সরিয়ে পাঠানো হয় প্যালেস্তাইনের হুওয়ারায়, সেখানে বসবাসকারী ইজরায়েলি নাগরিকদের নিরাপত্তা দিতে। তাই গাজা সীমান্ত পেরিয়ে যখন ইজরায়েলি পরিবারগুলিকে পণবন্দি করতে শুরু করে হামাস, সেখানে তাঁদের নিরাপত্তা দিতে পর্যাপ্ত ইজরায়েলি সেনা মোতায়েন ছিল না। তাই আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যমে এক ইজরায়েলি নাগরিক বলেন, “এই যুদ্ধে কোথাও একটা তাল কেটেছে। দেশের সরকার এবং নাগরিকদের মধ্যে বোঝাপড়া নেই আর আগের মতো। কারণ কথা ছিল, আমরা সীমান্ত পাহারা দেব, সরকার আমাদের পাহারা দেবে। আমরা আমাদের দায়িত্ব পালন করেছি। কিন্তু ইজরায়েল সরকার নিজের দায়িত্ব পালন করেনি।”

নাগরিকদের মনে যে ক্ষোভ তৈরি হয়েছে, তা বিলক্ষণ বুঝতে পারে নেতানইয়াহু সরকারও। তাই এখন দোষারোপ করার সময় নয় বলে প্রচার করা হচ্ছে। দেশের জাতীয় নিরাপত্তা বিষয়ক মন্ত্রী ইতামার বেন-জিভির বলেন, “সবচেয়ে কঠিন সময়ের মধ্যে দিয়ে যাচ্ছে ইজরায়েল। এটা প্রশ্ন তোলা, পরীক্ষা নেওয়া বা তদন্ত করার সময় নয়।” যুদ্ধ পরিস্থিতিতে বিরোধীদের নিয়ে ঐক্যবদ্ধ সরকার গড়ে তুলতে নেতানইয়াহু অগ্রণী ভূমিকা পালন করলেও, বিরোধী পক্ষের নেতা বেনি গাঞ্জ প্রকাশ্যেই জানিয়েছেন, যুদ্ধ থিতিয়ে না আসা পর্যন্ত এই জোট সরকারে থাকবেন তাঁরা। আর এক বিরোধী নেতা ইয়ের লাপিদও শর্তসাপেক্ষে সরকারের সঙ্গে হাত মিলিয়েছেন, যাতে যুদ্ধ পরিস্থিতিতে দেশের অন্দরেই বিশৃঙ্খলা দেখা না দেয়। তাই নেতানইয়াহু সরকার যুদ্ধের জন্য হামাস, হেজবোল্লা, প্যালেস্তিনীয় নাগরিক এবং ইরানকে দায়ী করলেও, গোটাটাই ব্যর্থতা থেকে নজর ঘোরানোর চেষ্টা বলে দাবি করছেন রাজনৈতিক সমালোচকরা। 

যুদ্ধ ঘোষণার আগে পর্যন্তও নেতানইয়াহু খুব একটা স্বস্তিতে ছিলেন না। দুর্নীতি মামলা যেমন তাড়া করে বেড়াচ্ছিল তাঁকে, গায়ের জোরে দেশের সুপ্রিম কোর্টের ক্ষমতা খর্ব করা নিয়ে দেশ জুড়ে তাঁর বিরুদ্ধে আন্দোলনও শুরু হয়েছিল। অতি সম্প্রতি একটি সমীক্ষায় দেখা যায়, নেতানইয়াহুর জনপ্রিয়তা তলানিতে এসে ঠেকেছে। এই মুহূর্তে নির্বাচন হলে নেতানইয়াহু জিততে পারবেন না বলে এক সপ্তাহ আগে পর্যন্ত আলোচ্য বিষয় ছিল দেশের সংবাদমাধ্যমগুলিতে। যুদ্ধ নেমে আসায় সেই কাটাছেঁড়ায় সাময়িক ছেদ পড়েছিল বটে, কিন্তু প্রাণহানি, ক্ষয়ক্ষতি যত বেড়ে চলেছে, আবারও নেতানইয়াহু এবং তাঁর সরকারের ভূমিকা নিয়ে প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে। নেতানইয়াহুর সমর্থকের সংখ্যা যদিও কম নয়। কিন্তু আমেরিকা এবং পশ্চিমি দেশগুলির সহযোগিতায় যুদ্ধ যদিও বা সামাল দিতে পারেন, রাজনৈতিক ভাবে ইজরায়েলে ফের ক্ষমতায় ফিরতে নেতানইয়াহুকে বেগ পেতে হবে বলে মনে করছে কূটনৈতিক মহলও।

Read More 

Continue Reading
Click to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

বিদেশ

Donald Trump: পুনরায় প্রেসিডেন্ট হওয়ার অযোগ্য ট্রাম্প, ঘোষণা আমেরিকার আদালতের

Published

on

ওয়াশিংটন : আমেরিকার ইতিহাসে নজিরবিহীন ঘটনা। পরের বছর দেশে অনুষ্ঠিত হতে চলা প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে লড়তে পারবেন না প্রাক্তন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প (Former President Donald Trump)। মঙ্গলবার ট্রাম্পকে ভোটে লড়ার অযোগ্য বলে ঘোষণা করে কলোরাডো সুপ্রিম কোর্ট। ২০২১ সালের ৬ জানুয়ারি আমেরিকার ক্যাপিটলে তাঁর সমর্থকদের হামলায় ট্রাম্পের ভূমিকার জেরে এই সিদ্ধান্ত। আর আদালতের এই ঘোষণার সাথে সাথে ট্রাম্পই আমেরিকার ইতিহাসে প্রথম প্রেসিডেন্ট পদপ্রার্থী যাকে হোয়াইট হাউসে প্রবেশে অযোগ্য বলে ঘোষণা করা হল। আমেরিকা সংবিধানের খুবই কম ব্যবহৃত এক বিধানে বলা হয়েছে, যেসব অফিসিয়াল ‘বিদ্রোহের’ সঙ্গে জড়িত তাঁদের পদে থাকা যাবে না।

Read More

Continue Reading

বিদেশ

China Earthquake: চিনে ভয়াবহ ভূমিকম্প, মৃত শতাধিক ; জখম অনেকে

Published

on

বেজিং : চিনে ভয়াবহ ভূমিকম্প । অন্ততপক্ষে ১১১ জনের মৃত্যু। শুরু হয়েছে উদ্ধারকাজ। CCTV সূত্রের খবর, তীব্র কম্পনে চিনের গানসু প্রদেশে প্রায় ১০০ জনের মৃত্যু হয়েছে। জখম ২০-র বেশি। অন্যদিকে, কিংঘাইয়ের প্রতিবেশী প্রদেশ হাইডংয়ে আরও ১১ জনের মৃত্য়ু হয়েছে। সেখানে জখমের সংখ্যা ১০০। US Geological Survey-র তথ্য অনুযায়ীস কম্পনের মাত্রা ছিল ৫.৯।

ভূমিকম্পের জেরে তীব্র ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। ভেঙে পড়েছে বহু বাড়ি। নিরাপত্তার খোঁজে মানুষ এদিক ওদিক ছোটাছুটি শুরু করে দেন। নিউজ এজেন্সি  Xinhua সূত্রের খবর। মঙ্গলবার সকাল পর্যন্ত চলে উদ্ধারকাজ। ভূমিকম্পের পর জীবিতদের উদ্ধারকাজ এবং তাঁদের সম্পত্তি রক্ষায় সর্বাত্মক চেষ্টার নির্দেশ দেন প্রেসিডেন্ট শি জিপিং। সঙ্গে ত্রাণ পরিষেবাও।

আগেও ভূমিকম্প-

গত বছর সেপ্টেম্বর মাসেও তীব্র ভূমিকম্পে লন্ডভন্ড হয়ে গিয়েছিল চিনের বিস্তীর্ণ এলাকা। স্থানীয় সময় দুপুর ১২টা বেজে ৫২ মিনিট নাগাদ কেঁপে ওঠে চিন (China Earthquake)। রিখটার স্কেলে কম্পনের তীব্রতা ছিল ৬.৮। তাতে কমপক্ষে ৬৫ জনের মৃত্য হয়। চিনের ‘গ্লোবাল টাইমস’ সংবাদপত্র জানায়, এক ঘণ্টার মধ্যে সাত সাত বার কেঁপে ওঠে সিচুয়ান প্রদেশ (Sichuan Province)। তীব্র কম্পনের ফলে পার্বত্য এলাকায় জায়গায় জায়গায় ধস নামে। বিস্তীর্ণ এলাকার সঙ্গে যোগাযোগ ব্যবস্থা বিচ্ছিন্ন হয়ে যায় গোটা দেশের।

স্থানীয় সংবাদমাধ্যম সূত্রে জানা যায়, ভূমিকম্পের উৎসস্থল ছিল সিচুয়ান প্রদেশে, ভূগর্ভের ১০ কিলোমিটার গভীরে। চিন সরকার জানায়, সিচুয়ান প্রদেশের চেংদু শহরের ২২৬ কিলোমিটার দক্ষিণ-পশ্চিমের লুদিং পার্বত্য এলাকায় ভূমিকম্পের উৎপত্তি। তাতে ইয়াং এলাকায় ১৯ জনের মৃত্যু হয়। গাংচিতে মারা যান ২৯ জন।

চেংদুতে একাধিক বাড়ি ভেঙে যায়। তার সংলগ্ন চোংকিং মেগাসিটিতেও ক্ষয়ক্ষতি হয় বিপুল। ধস নেমে বন্ধ হয়ে যায় রাস্তাঘাট। টেলিফোন থেকে ইন্টারনেট সংযোগ সম্পূর্ণ বিচ্ছিন্ন হয়ে যায় সেখানের সঙ্গে। ওই এলাকায় প্রায় ১০ হাজার মানুষের বাস। সেখানে বিদ্যুৎ পরিষেবাও বিপর্যস্ত হয়ে পড়ে। যুদ্ধকালীন পরিস্থিতিতে ক্ষতিগ্রস্ত এলাকায় উদ্ধারকার্যের নির্দেশ দেন চিনের প্রেসিডেন্ট শি জিনপিং।

২০২১ সালের মে মাসেও আচমকা ভূমিকম্পে কেঁপে ওঠে চিনের ইউনান প্রদেশ। রিখটার স্কেলে কম্পনের তীব্রতা ছিল ৬.১। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ভূতত্ত্ববিদরা জানান, ভূমিকম্পের উৎসস্থল পর্যটনের জন্য বিখ্যাত দানি শহরের কাছে, মাটির ১০ কিলোমিটার (প্রায় ৬ মাইল) ভেতরে। রিখটার স্কেলে প্রথমে কম্পনের মাত্রা দেখিয়েছিল ৬.০। পরে সেটি আরও বাড়ে। ৬.১ হয়ে দাঁড়ায়।

Read More

Continue Reading

বিদেশ

Dawood Ibrahim: মোস্ট ওয়ান্টেড দাউদ ইব্রাহিমকে বিষপ্রয়োগ পাকিস্তানে? হাসপাতালে ভর্তির খবর

Published

on

নয়া দিল্লি: গুরুতর অসুস্থ হয়ে পাকিস্তানের (Pakistan) হাসপাতালে (Hospital) ভর্তি আন্ডারওয়ার্ল্ড ডন (Don) দাউদ ইব্রাহিম (Dawood Ibrahim)। বিষপ্রয়োগের জেরে মুম্বই হামলার মূল চক্রীর অবস্থা সঙ্কটজনক, খবর পাক সংবাদমাধ্যম (Pakistan Media) সূত্রে।

দাউদের অসুস্থতার খবর আসার পরেই পাকিস্তান জুড়ে তৎপরতা। লাহৌর, করাচি, ইসলামাবাদের মতো শহরে কড়া সতর্কতা। পাকিস্তানের বিভিন্ন শহরে সার্ভার ডাউন, কাজ করছে না এক্স, ফেসবুক ও ইনস্টাগ্রাম।

এর আগে পাকিস্তানেই আছে দাউদ, একথা স্বীকার করার ২৪ ঘণ্টার মধ্যেই দাউদ ইব্রাহিম সম্পর্কে ভোলবদল করেছিল পাকিস্তান। ইসলামাবাদের দাবি ছিল, দাউদ ইব্রাহিম পাকিস্তানে আছে বলে যে দাবি করা হচ্ছে, তা ভিত্তিহীন। অথচ সেই সময় ইমরান সরকার জঙ্গিদের নামের তালিকা প্রকাশ করে। তাতে নাম ছিল দাউদের।

করাচিতে দাউদের দু’টি বাড়ির ঠিকানাও উল্লেখ করা হয়েছিল। জঙ্গিদের অর্থ সাহায্যে রাশ টানতে পদক্ষেপ না করায় পাকিস্তানকে ধূসর তালিকাভূক্ত করে আন্তর্জাতিক সংস্থা ফিনান্সিয়াল অ্যাকশন টাস্ক ফোর্স। এই অপবাদ ঘোচাতে ৮৮টি জঙ্গি সংগঠন ও তাদের মাথাদের নামের তালিকা প্রকাশ করে পাকিস্তান। তাতেই নাম ছিল দাউদের।

এদিকে, দাউদ ইব্রাহিমের সন্ধান দিতে পারলে মিলবে ২৫ লাখ টাকা। ডনের নাগাল পেতে আর্থিক পুরস্কার ঘোষণা করেছিল জাতীয় তদন্তকারী সংস্থা বা NIA। সেই সঙ্গে দাউদের ঘনিষ্ঠ সহযোগী শাহিল শেখ বা ছোটা শাকিলের মাথার দাম ২০ লক্ষ টাকা ঘোষণা করেছিল তারা।

আরও পড়ুন, এবার হিন্দুদের মাংস খাওয়া নিয়ে গিরিরাজের বিশেষ বার্তা !

সংবাদ সংস্থা সূত্রে খবর, গত ১৮ অগাস্ট NIA’র তরফে একটি প্রেস বিজ্ঞপ্তি জারি করা হয়। তাতে বলা হয়, দাউদের ডি-কোম্পানি আন্তর্জাতিক সন্ত্রাসবাদী নেটওয়ার্ক, যা টেরর ফান্ডিংয়ের জন্য লস্কর-ই-তইবা, জইশ-ই-মহম্মদ এবং আলকায়দার মতো আন্তর্জাতিক জঙ্গি সংগঠনগুলির সঙ্গে যোগাযোগ রেখে কাজ করে। দাউদ ও ছোটা শাকিলের পাশাপাশি ডি-কোম্পানির আরও ৩ সদস্যের নামে ১৫ লাখ টাকা করে আর্থিক পুরস্কার ঘোষণা করেছে NIA।

আপনার পছন্দের খবর আর আপডেট এখন পাবেন আপনার পছন্দের চ্যাটিং প্ল্যাটফর্ম হোয়াটস অ্যাপেও। যুক্ত হোন ABP Ananda হোয়াটস অ্যাপ চ্যানেলে 

 

Read More

Continue Reading
Advertisement
খেলা3 days ago

Gujrat Titans: পেস অ্যাটাকে শামির সঙ্গে উমেশ, নিলাম শাহরুখ খানকে নিয়ে কতটা শক্তিশালী হল গুজরাত শিবির?

খেলা3 days ago

Sunrisers Hayderabad: রেকর্ড দরে দলে কামিন্স, আছেন বিশ্বকাপ ফাইনালের নায়ক, এক নজরে নতুন মরসুমের সানরাইজার্স শিবির

দেশ3 days ago

Rashmika Mandanna Deepfake Case: রশ্মিকা মান্দানার ‘ডিপফেক’ ভিডিও-কাণ্ডে ৪ সন্দেহভাজনের খোঁজ পেল দিল্লি পুলিশ

খেলা3 days ago

Mitchell Starc: আইপিএলের ইতিহাসে সর্বােচ্চ দর পেয়েছেন, এবার নাইট সমর্থকদের জন্য বড় বার্তা স্টার্কের

দেশ3 days ago

Gauri Khan: রিয়েল এস্টেট প্রতারণা মামলায় শাহরুখ-পত্নী গৌরী খানকে নোটিস ED-র!

খেলা3 days ago

IND vs SA: জর্জির প্রথম ওয়ান ডে সেঞ্চুরি, দ্বিতীয় ওয়ান ডে-তে কেন হারতে হল রাহুলদের?

বিদেশ3 days ago

Donald Trump: পুনরায় প্রেসিডেন্ট হওয়ার অযোগ্য ট্রাম্প, ঘোষণা আমেরিকার আদালতের

দেশ3 days ago

Parliament News Update: সংসদের চেম্বার, লবি-গ্যালারিতে ঢুকতে পারবেন না সাসপেন্ডেড সাংসদরা, সার্কুলার জারি লোকসভার সচিবালয়ের

খেলা3 days ago

IPL Auction: আইপিএল নিলামে রেকর্ডের দিন বাংলার প্রাপ্তির ভাঁড়ার শূন্য, দল পেলেন না কেউই

কলকাতা3 days ago

Covid 19: সামনেই ক্রিসমাস, কোভিডের নতুন ভ্যারিয়েন্ট নিয়ে উদ্বিগ্ন রাজ্য সরকার

দুর্গা পূজা ২০২৩2 months ago

লালাবাগান সার্বজনীন দুর্গাপূজা

কলকাতা3 months ago

ফ্ল্যাট বিক্রির জালিয়াতির কেস এ অভিনেত্রী নুসরাতের কাছে আরও নথি চাইল ইডি

দেশ3 months ago

ভারত থেকে বেশকিছু কূটনীতিক দের সিঙ্গাপুর, মালয়েশিয়ায় সরালো কানাডা

কর্মখালি3 months ago

পুলিশে 412 ড্রাইভার নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি

দুর্গা পূজা ২০২৩2 months ago

সল্টলেকে বি কে ব্লক এর মণ্ডপ সজ্জা | দেখুন কিভাবে সেজে উঠছে |

দেশ3 months ago

বানজারা হিলস রোটারী ক্লাব এর উদ্যোগে মৃত্যু পথযাত্রী নিঃসঙ্গ মানুষ দের জন্য Sparsh Hospice

দেশ3 months ago

ব্যবসার ক্ষেত্রে ভারতের ভিসা সাসপেনশন কি প্রভাব ফেলতে পারে ?

কর্মখালি3 months ago

গ্রন্থাগারিক, পিটিআই এবং সহকারী অধ্যাপক পদের বিজ্ঞপ্তি

কলকাতা3 months ago

ED র অফিসার কি আদৌ প্রশিক্ষিত ? বিচার পতির সন্দেহ প্রকাশ |

আবহাওয়া3 months ago

জলবায়ু পরিবর্তন আরও ভূমিকম্প এবং আগ্নেয়গিরির অগ্ন্যুৎপাতের কারণ হতে পারে। জানুন কেন?

দুর্গা পূজা ২০২৩2 months ago

বিবেকানন্দ সার্বজনীন দুর্গোৎসব কমিটির দূর্গা পূজা

দুর্গা পূজা ২০২৩2 months ago

লালাবাগান সার্বজনীন দুর্গাপূজা

দুর্গা পূজা ২০২৩2 months ago

গোলাঘাটা সম্মিলনী পূজা কমিটির দুর্গাপূজা

দুর্গা পূজা ২০২৩2 months ago

হাতিবাগান সার্বজনীন দুর্গাপূজা

দুর্গা পূজা ২০২৩2 months ago

আহিরীটোলা সার্বজনীন দুর্গাপূজা

দুর্গা পূজা ২০২৩2 months ago

কুমোরটুলি সার্বজনীন দুর্গাপুজো

দুর্গা পূজা ২০২৩2 months ago

নলিনী সরকার স্ট্রীটের সার্বজনীন দুর্গাপুজো

দুর্গা পূজা ২০২৩2 months ago

আজাদহিন্দবাগ সার্বজনীন দুর্গোৎসব

দুর্গা পূজা ২০২৩2 months ago

মানিকতলা লোহাপট্টি চালতাবাগান এর দূর্গা পুজো

দুর্গা পূজা ২০২৩2 months ago

লেকটাউন অধিবাসী বৃন্দের দূর্গা পূজা

Trending