Connect with us

ক্রিকেট

Australian Cricket Team: খেতাব ঘরে তুলতে অস্ট্রেলিয়ার হাতিয়ার অভিজ্ঞতা, ষষ্ঠবার বিশ্বকাপ জিততে পারবেন অজ়িরা?

Published

on

কলকাতা: বিশ্বকাপ (ODI World Cup) আর অস্ট্রেলিয়া (Australian Cricket Team)! এক সময় এই দুইটি শব্দ যেন সমার্থক হয়ে উঠেছিল। একমাত্র দল হিসাবে অজ়িরা ১৯৯৯ থেকে টানা তিনবার বিশ্বকাপ জিতেছে। সর্বাধিক পাঁচবার ৫০ ওভারের বিশ্বজয়ের রেকর্ডও অজ়িদের দখলেই। সেই অস্ট্রেলিয়া এবার ভারতের মাটিতে নিজেদের ষষ্ঠ খেতাব জয়ের লক্ষ্যে মাঠে নামতে চলেছে।

দল, ফর্ম, পরিবেশ, পরিস্থিতি যেমনই হোক না কেন, অস্ট্রেলিয়া দল কিন্তু প্রতিটি বিশ্বকাপেই অন্যতম ফেভারিট হিসাবে মাঠে নামে এবং ধারাবাহিকভাবে পারফর্ম করে। এই বারের বিশ্বকাপেও অন্যথা হওয়ার সম্ভাবনা দেখছেন না বিশেষজ্ঞরা। 

সাম্প্রতিক ফর্ম

বিশ্বকাপের প্রাক্কালে অস্ট্রেলিয়ার ফর্মের বিষয়ে যতটা কম বলা যায় ততই ভাল। মেগা টুর্নামেন্টের আগের মাসের শুরুটা কিন্তু অজ়িরা খারাপ করেননি। সেপ্টেম্বরের শুরুতেই দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে তাদেরই ঘরের মাঠে পাঁচ ম্যাচের ওয়ান ডে সিরিজ়ের প্রথম দুই ম্যাচ জিতে শুরুটা দারুণভাবে করেছিলেন অজ়িরা। তবে তারপরেই নাগাড়ে পাঁচ হার। প্রোটিয়া এবং ভারতের বিরুদ্ধে সিরিজ় হারেন অজ়িরা। ভারতকে তিন ম্যাচের সিরিজ়ের শেষ ম্যাচে হারালেও, প্যাট কামিন্সদের সাম্প্রতিক ফর্ম যে ভাল নয়, তা বলাই বাহুল্য।

শক্তি

অস্ট্রেলিয়ার দলের সবথেকে বড় প্লাস পয়েন্ট হল তাঁদের দলের খেলোয়াড়দের অভিজ্ঞতা। মিচেল স্টার্ক (Mitchell Starc), প্যাট কামিন্স (Pat Cummins), ডেভিড ওয়ার্নার, স্টিভ স্মিথ, গ্লেন ম্যাক্সওয়েলরা (Glenn Maxwell) ভারতের এই পরিবেশে অতীতে বহুবার খেলেছেন এবং বহু সাফল্য অর্জন করেছেন। তাই বাকি দলগুলির মতো তাঁদের পরিবেশের সঙ্গে মানিয়ে নেওয়ার তেমন কোনওরকম সমস্যা হওয়ার কথা নয়। ওয়ার্নার কিন্তু গোটা বছর ধরেই দুরন্ত ফর্মে রয়েছেন। অজ়ি ওপেনার এই বছর ইতিমধ্যেই নয় ম্যাচে ১১৯.২৬ স্ট্রাইক রেটে ৩৯০ রান করে ফেলেছেন। ইনিংসের শুরুতে তাঁর ফর্ম দলের অন্যতম শক্তিশালী পক্ষ। আর মিচেল স্টার্ক তো রয়েছেনই। এই বছর মার্চে অস্ট্রেলিয়ার ২-১ ভারতীয় দলকে ওয়ান ডে সিরিজ়ে পরাজিত করে। স্টার্ক সেই সিরিজ়ে আট উইকেট নেন। তিনি চোট সারিয়ে সদ্য ফিরলেও, বিশ্বকাপের পঞ্চম সর্বোচ্চ উইকেটসংগ্রাহক ভারতের পিচে বিশেষ করে বল রিভার্স সুইং করিয়ে প্রতিপক্ষদের উইকেট ছিটকে দিতে পারেন। 

দুর্বলতা

ভারতের পিচ প্রথাগতভাবে স্পিন সহায়ক। সেখানেই অস্ট্রেলিয়ার খানিক সমস্যা রয়েছে। দলে তিন তিনটি বিশ্বমানের ফাস্ট বোলার থাকলেও, প্রথম সারির স্পিনার বলতে কেবল একজনই। তিনি অ্যাডাম জাম্পা। অজ়ি লেগ স্পিনার সাম্প্রতিক সময়ে সীমিত ওভারের ক্রিকেটে বেশ ভাল পারফর্ম করেছেন এবং তাঁর ভারতে খেলার যথেষ্ট অভিজ্ঞতাও রয়েছে। তবে অ্যাস্টন অ্যাগার চোট পেয়ে ছিটকে যাওয়ায় তিনি ছাড়া আর কোনও প্রথম সারির স্পিনারই দলে নেই। গ্লেন ম্যাক্সওয়েল, ট্র্যাভিস হেডরা পার্ট টাইম স্পিনার মাত্র। এছাড়া গ্লেন ম্যাক্সওয়েল, অ্যালেক্স ক্যারি, ক্যামেরন গ্রিনদের নিয়ে তৈরি অস্ট্রেলিয়ান মিডল অর্ডারও খুব একটা ভাল ফর্মে, যা টুুর্নামেন্টে অস্ট্রেলিয়াকে ভোগাতে পারে।

চমক দিতে তৈরি

ক্যামেরন গ্রিনের (Cameron Green) জন্য সদ্য সমাপ্ত ভারত-অস্ট্রেলিয়ার ওয়ান ডে সিরিজ়ে ভাল পারফর্ম করতে পারেননি। স্পিনারদের সামলাতে তাঁকে নাজেহাল হতে হয়েছে। তবে তাঁর দক্ষতা নিয়ে কোনও প্রশ্ন থাকতে পারে না। অস্ট্রেলিয়ান ক্রিকেট মহলে তাঁকেই পরবর্তী প্রজন্মের সবথেকে বড় তারকা বলে মনে করা হয়। সেই দক্ষতার উপর আস্থা রেখেই মুম্বই ইন্ডিয়ান্স বিরাট দামে তাঁকে আইপিএলে দলে নিয়েছিল। নিজের প্রথম মরশুমেই তিনি ৫০-র অধিক গড়ে রান করেছেন, হাঁকিয়েছিলেন শতরানও। তাই ভারতীয় পিচ তাঁর কাছে অচেনা নয়। ১৪০-র অধিক গতিতে বল করে তিনি প্রতিপক্ষ ব্যাটারদেরও চাপে ফেলতে পারেন। তুলনামূলক অভিজ্ঞ, তারকাখচিত অস্ট্রেলিয়ান দলে, ২৪ বছর বয়সি গ্রিনের মধ্যে কিন্তু লাইমলাইট কেড়ে নেওয়ার যথেষ্ট মালমশলা রয়েছে। 

গেমচেঞ্জার

অস্ট্রেলিয়ান দলে একাধিক গেমচেঞ্জার রয়েছেন। গ্লেন ম্যাক্সওয়েলের মতো ব্যাটার নিজের দিনে প্রতিপক্ষের সব পরিকল্পনা লন্ডভন্ড করে দিতে পারেন। ভারতের বিরুদ্ধে শেষ ওয়ান ডেতে চার উইকেটে নিয়ে তিনি প্রমাণ করে দিয়েছেন, যে তাঁর বোলিং হাতটাও মন্দ নয়। তবে একজনকে বেছে নিতে হলে, তিনি হবেন মিচেল স্টার্ক । বিশ্বকাপের মঞ্চে ইতিমধ্যে ১৮ ম্যাচ খেলে ৪৯টি উইকেট নিয়ে ফেলেছেন তিনি। বিশ্বমঞ্চে স্টার্ক বরাবরই ভয়ঙ্কর হয়ে উঠেন। গত দুই বিশ্বকাপে সর্বোচ্চ উইকেটসংগ্রাহক হয়েছিলন তিনি। নতুন বল হোক বা পুরনো, স্টার্ক নিজের গতি, সুইং এবং নিখুঁত ইয়র্কারে এক ওভারেই ম্যাচের রং বদলে দিতে সক্ষম। তিনিই অজ়ি দলের সবথেকে বড় গেমচেঞ্জার।

বিশ্বকাপের দল: প্যাট কামিন্স (অধিনায়ক), মিচেল মার্শ, স্টিভ স্মিথ, অ্যাডাম জাম্পা, জস ইংলিশ (উইকেটরক্ষক), ট্র্যাভিস হেড, মার্কাস স্টইনিস, মার্নাস লাবুশেন, গ্লেন ম্যাক্সওয়েল, ডেভিড ওয়ার্নার, জস হ্যাজেলউড, অ্যালেক্স ক্যারি (উইকেটরক্ষক), মিচেল স্টার্ক, ক্যামেরন গ্রিন, সন অ্যাবাট

বিশ্বকাপে অস্ট্রেলিয়ার সূচি: 

  • বনাম ভারত, চেন্নাই, ৮ অক্টোবর, রবিবার, দুপুর ২
  • বনাম দক্ষিণ আফ্রিকা, লখনউ, ১২ অক্টোবর, বৃহস্পতিবার, দুপুর ২
  • বনাম শ্রীলঙ্কা, লখনউ, ১৬ অক্টোবর, সোমবার, দুপুর ২
  • বনাম পাকিস্তান, বেঙ্গালুরু, ২০ অক্টোবর, শুক্রবার, দুপুর ২
  • বনাম নেদারল্যান্ডস, নয়াদিল্লি, ২৫ অক্টোবর, বুধবার, দুপুর ২
  • বনাম নিউজ়িল্যান্ড, ধর্মশালা, ২৮ অক্টোবর, শনিবার, সকাল ১০.৩০
  • বনাম ইংল্যান্ড, আমদাবাদ, ৪ নভেম্বর, শনিবার, দুপুর ২
  • বনাম আফগানিস্তান, মুম্বই, ৭ নভেম্বর, মঙ্গলবার, দুপুর ২
  • বনাম বাংলাদেশ, পুণে, ১১ নভেম্বর, শনিবার, সকাল ১০.৩০

আপনার পছন্দের খবর আর আপডেট এখন পাবেন আপনার পছন্দের চ্যাটিং প্ল্যাটফর্ম টেলিগ্রামেও। যুক্ত হোন

https://t.me/abpanandaofficial

আরও পড়ুন: স্পিনারদের হাতে আফগানিস্তানের বিশ্বকাপ ভাগ্য, তিক্ত অভিজ্ঞতা ভুলতে পারবেন রশিদরা?

Read More 

Continue Reading
Click to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

ক্রিকেট

ICC Cricket World Cup 2023 Final: ২২ গজের যুদ্ধে ভারত না অস্ট্রেলিয়া কে এগিয়ে, কে পিছিয়ে? কী বলছে ইতিহাস?

Published

on

আমদাবাদ: আর মাত্র কয়েক ঘণ্টা। তারপরেই সবরমতীর তীরে খেতাবি লড়াই। ভারত-অস্ট্রেলিয়ার (India vs Australia) হাইভোল্টেজ বিশ্বকাপ ফাইনাল (ICC World Cup 2023 Final) ঘিরে চরমে উত্তেজনার পারদ। দুই শক্তিধর দেশের সেয়ানে সেয়ানে লড়াই দেখার জন্য মুখিয়ে গোটা বিশ্ব। হেক্সার স্বপ্নপূরণ, নাকি অপরাজিত থেকে বিশ্বজয়, অস্ট্রেলিয়া না ভারত, কার হাতে উঠবে কাপ। সেটা না হয় জানতে এখনও কয়েক ঘণ্টা বাকি রয়েছে। তবে ইতিহাস কী বলছে?

ভারত এবং অস্ট্রেলিয়া প্রথমবার সীমিত ওভারের ক্রিকেটে ১৯৮০ সালে একে অপরের মুখোমুখি হয়েছিল। সকলকে বেশ খানিকটা চমকে দিয়েই ৬৬ রানে সেই ম্যাচে জয় পায় টিম ইন্ডিয়া। তবে তারপর দীর্ঘ সময় ধরে চলে অজ়ি শাসন। ওয়ান ডে ফর্ম্যাটে দুই দলের মুখোমুখি সাক্ষাৎকারে কিন্তু এখনও বেশ খানিকটা এগিয়ে অস্ট্রেলিয়াই। ভারতের বিরুদ্ধে ৮৩টি ম্যাচ খেলেছে অস্ট্রেলিয়া, ৫৩টি ম্যাচে জয় পেয়েছে টিম ইন্ডিয়া। ভারত-অস্ট্রেলিয়ার ১০টি ম্যাচ অমীমাংসিতই শেষ হয়েছে।

তবে সাম্প্রতিক ছবিটা কিন্তু ভিন্ন। বিশ্বকাপ শুরুর ঠিক আগেই ভারতের ঘরের মাটিতেই মুখোমুখি হয়েছিল ভারত ও অস্ট্রেলিয়া। তিন ম্যাচের সেই সিরিজে রোহিত, কোহলিদের অনুপস্থিতিতেও প্রথম দুই ম্যাচ জিতে সিরিজ জিতে নিয়েছিল ভারত। শেষ ম্যাচটি অবশ্য অস্ট্রেলিয়া জেতে। বিশ্বকাপে নিজেদের প্রথম ম্যাচেও দুই দল একে অপরের মুখোমুখি হয়েছিল। সেই ম্যাচেও আগাগোড়া ভারতীয় দল দাপট দেখায়। মাত্র ১৯৯ রানে অজ়িদের গুটিয়ে দেওয়ার পর কেএল রাহুলের ৯৭ রানের ইনিংসে ছয় উইকেটে ম্যাচ জিতে নেয় ভারত।

দুই দলের মুখোমুখি লড়াইয়ে সর্বোচ্চ রান, উইকেটসংগ্রাহক, সবচেয়ে বড় জয়ের মতো না না তথ্য এক নজরে দেখে নেওয়া যাক।

সর্বোচ্চ রান

বিশ্বকাপের আগের যে দুই দলের সিরিজেই ইনদওরে ভারতীয় দল পাঁচ উইকেটের বিনিময়ে ৩৯৯ রান তুলেছিল, যা ওয়ান ডেতে দুই দলের মুখোমুখি সাক্ষাৎকারে এক ইনিংসে ওঠা সর্বোচ্চ স্কোর।

সর্বনিম্ন স্কোর

সর্বোচ্চ রানের পাশাপাশি সর্বনিম্ন স্কোরও কিন্তু ভারতই করেছে। ১৯৮১ সালে সিডনিতে অজ়িদের বিরুদ্ধে মাত্র ৬৩ রানে অল আউট হয়ে গিয়েছিল ভারতীয় দল

সবচেয়ে বড় জয়

২০০৪ সালে অস্ট্রেলিয়া ভারতকে ২০৮ রানে হারায় যা এখনও পর্যন্ত দুই দলের মুখোমুখি সাক্ষাৎকারে সবচেয়ে বড় ব্যবধানে জয়।

সর্বাধিক রান (ব্যক্তিগত)

সচিন তেন্ডুলকর ভারত-অস্ট্রেলিয়ার ওয়ান ডে মোকাবিলায় সর্বাধিক ৩০৭৭ রান করেছেন। তিনিই সর্বাধিক নয়টি সেঞ্চুরিও হাঁকিয়েছেন।

সর্বাধিক উইকেট

৩২ ম্যাচে ৫৫টি উইকেট নেওয়া ব্রেট লি ভারত-অস্ট্রেলিয়ার মোকাবিলায় সর্বোচ্চ উইকেটসংগ্রাহক।

সর্বোচ্চ শিকার

অ্যাডাম গিলক্রিস্ট ভারত-অস্ট্রেলিয়ার মোকাবিলায় সর্বাধিক ৭৯টি সাফল্য (৭৩টি ক্যাচ, ছয়টি ক্যাচ) পেয়েছেন।

ইতিহাস, পরিসংখ্যান যাই হোক না কেন ফাইনালের লড়াই কিন্তু সর্বদাই ভিন্ন। তাই এই ম্যাচের ফলাফল ঠিক কী হবে, তা কিন্তু আগে থেকে বলা সম্ভব নয়।

আপনার পছন্দের খবর আর আপডেট এখন পাবেন আপনার পছন্দের চ্যাটিং প্ল্যাটফর্ম হোয়াটস অ্যাপেও। যুক্ত হোন ABP Ananda হোয়াটস অ্যাপ চ্যানেলে।

https://whatsapp.com/channel/0029VaCBCh6545uwkeNBg11y

আরও পড়ুন: রবিবার সবরমতীর তীরে ওয়ান ডে বিশ্বযুদ্ধের ফয়সালা, কখন-কোথায় দেখবেন ম্যাচ?

Read More

Continue Reading

ক্রিকেট

ODI World Cup 2023 Live: দুই দশক আগের হারের বদলা না ষষ্ঠ খেতাব জয়? আমদাবাদে বিশ্বখেতাব উঠবে কার হাতে?

Published

on

আমদাবাদ: আজ বিশ্বকাপের (ODI World Cup Final) ফাইনাল। দেড় মাস ধরে চলা বাইশ গজের বিশ্বযুদ্ধের পরিসমাপ্তি। মুখোমুখি ভারত ও অস্ট্রেলিয়া (IND vs AUS)। এক দলের সামনে ১২ বছর পর ফের ঘরের মাঠে বিশ্বজয়ের সুযোগ। অন্য দলের সামনে হেক্সা করার হাতছানি। কেউ কেউ আবার ফাইনাল ম্যাচের গায়ে জড়িয়ে দিচ্ছেন প্রতিশোধের প্রলেপ। বলছেন, অস্ট্রেলিয়াকে ফাইনালে হারিয়ে কাপ জয় মানে শুধু ক্রিকেটীয় শ্রেষ্ঠত্বের যুদ্ধে বিজয়ী তকমা ছিনিয়ে নেওয়াই নয়, ২০ বছর পুরনো শাপমোচনের মঞ্চও। ২০০৩ সালে সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়ের নেতৃত্বাধীন টিম ইন্ডিয়াকে ফাইনালে নাস্তানাবুদ করে ট্রফি জিতেছিল রিকি পন্টিংয়ের অস্ট্রেলিয়া। এবার ভারতের সামনেও তাই ‘মওকা মওকা’ বাজিয়ে দেওয়া হচ্ছে।

এই দেড় মাসে ক্রিকেট বিশ্বও কত বদলে গিয়েছে। বিরাট কোহলি ওয়ান ডে ক্রিকেটে সেঞ্চুরির হাফসেঞ্চুরি করে ভেঙে দিয়েছেন সচিন তেন্ডুলকরের কীর্তি। বিশ্বকাপে দ্রুততম সেঞ্চুরির নজির গড়েছেন গ্লেন ম্যাক্সওয়েল। আফগানিস্তানের বিরুদ্ধে ম্যাড-ম্যাক্সের ১২৮ বলে অপরাজিত ২০১ রানের ইনিংসকে তো অনেকে ওয়ান ডে ক্রিকেটে সর্বকালের সেরা বলে চিহ্নিত করেছেন। নিউজ়িল্যান্ডের ফের নক আউট থেকে বিদায়। পাকিস্তানের গ্রুপ পর্বেই বিপর্যয় আর সে দেশের ক্রিকেটে খোলনলচে বদলে ফেলার প্রক্রিয়া শুরু। শাকিব আল হাসানের বাংলাদেশের হাত ধরে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে প্রথম টাইমড আউটের দৃষ্টান্ত। সরকারি হস্তক্ষেপের জন্য শ্রীলঙ্কা ক্রিকেটকে আইসিসি-র নির্বাসন। আফগানিস্তানের উত্থান। সব মিলিয়ে জমজমাট থেকেছে ক্রিকেট বিশ্ব।

এবার টুর্নামেন্টের নাটকীয় পরিসমাপ্তির অপেক্ষায় ক্রিকেটপ্রেমীরা। একটা ব্যাপারে সকলে একমত যে, ফাইনালে মুখোমুখি হচ্ছে টুর্নামেন্টের সেরা দুই দলই। একদিকে ভারত টানা ১০ ম্যাচ জিতে, অপরাজিত থেকে ফাইনালে। অন্যদিকে প্রাথমিক ধাক্কা কাটিয়ে টানা আট ম্যাচ জিতে চূড়ান্ত যুদ্ধে নামার সুযোগ অস্ট্রেলিয়ার। ফেভারিট তকমা পাচ্ছে ভারতই। পাবে নাই বা কেন? চলতি বিশ্বকাপে প্রথমে ব্যাট করলে ভারত গড়ে ১৭৫ রানে জিতেছে ম্যাচ। আর রান তাড়া করলে গড়ে ৬৪.৪ বল বাকি থাকতে ম্যাচ জিতেছেন রোহিত শর্মারা। নিজেদের প্রথম ম্যাচে অস্ট্রেলিয়াকে একপেশেভাবে হারিয়েছিল ভারত। ফলে আমদাবাদের নরেন্দ্র মোদি স্টেডিয়ামে রবিবার দুপুরে যে কাপ জয়ের প্রধান দাবিদার হিসাবেই টস করতে নামবেন রোহিত শর্মা, বলার অপেক্ষা রাখে না।

আর সেটাই না শাপে বর হয় অস্ট্রেলিয়ার কাছে, আশঙ্কা করছেন কেউ কেউ। বিশ্বকাপের ঠিক আগে দক্ষিণ আফ্রিকা ও ভারতের কাছে সিরিজ হেরেছিলেন অজ়িরা। বিশ্বকাপে আফগানিস্তানের বিরুদ্ধে ৯১/৭ হয়ে গিয়েছিলেন। ম্যাক্সওয়েলের সেই অবিশ্বাস্য ইনিংস না থাকলে হয়তো সেই ম্য়াচেই বেইজ্জত হতে হতো অস্ট্রেলিয়াকে। ফাইনালে প্যাট কামিন্সরা কালো ঘোড়া হিসাবেই নামবেন। চাপমুক্ত হয়ে মাঠে নামা না আশীর্বাদ হয়ে দাঁড়ায় অজ়ি শিবিরের কাছে।

গোটা বিশ্বকাপে ভারতীয় দল গর্ব করার মতো একাধিক মুহূর্ত তৈরি করেছে। প্রতিপক্ষকে একবার অল আউট করেছে ৮৩ রানে, আর একবার ৫৫-তে। পাঁচ ম্যাচে প্রথমে ব্যাট করে তিনবার সাড়ে তিনশোর ওপর রান তুলেছে। এক ম্যাচে তুলেছে ৩২৬/৫। ফিল্ডিংয়ে নিশ্ছিদ্র। টপ অর্ডার ব্যাটিংয়ে পাঁচজনের মধ্যে চারজন চলতি বিশ্বকাপে সেঞ্চুরি পেয়েছেন। শুভমন গিল সেঞ্চুরি না পেলেও ব্যাটিং গড় রেখেছেন ৫০!

সঙ্গে রয়েছে জনতা জনার্দনের সমর্থন। রবিবার আমদাবাদে এক লক্ষ ৩২ হাজার মানুষ গলা ফাটাবেন রোহিত, বিরাট কোহলিদের জন্য। তবে অস্ট্রেলিয়া যে প্রতিপক্ষ হিসাবে বিপজ্জনক, তা ভালই জানে টিম ইন্ডিয়া। প্রতিপক্ষের জন্য বিপুল জনসমর্থনও যাদের দমিয়ে রাখতে পারবে না। কামিন্স তো সাফ বলে দিয়েছেন, ‘এক তরফা সমর্থন পাবে ভারত। তবে কানায় কানায় ভরা গ্যালারিকে চুপ করিয়ে দেওয়ার মতো তৃপ্তি আর কিছুতেই নেই।’ সে যতই ডেভিড ওয়ার্নার পুষ্পা দ্য রাইজিং সিনেমার জনপ্রিয় গান শ্রীবল্লির তালে নেচে মাঠ মাতান না কেন। বা ম্যাক্সওয়েল আইপিএল সতীর্থ কোহলিকে দেখে যতই আলিঙ্গন করুন না কেন, তাঁরা যে পেশাদারিত্বের বর্ম গায়ে চাপিয়ে মাঠে নামবেন, আর সামান্যতম সুযোগেও ভারতকে চুরমার করতে চাইবেন, ভালমতোই জানেন টিম ইন্ডিয়ার ক্রিকরেটারেরাও। রবিবার অস্ট্রেলিয়ার প্রথম একাদশের পাঁচজন ২০১৫ সালে বিশ্বচ্যাম্পিয়ন দলের সদস্য ছিলেন। তাই বড় মঞ্চে কীভাবে খেলতে হয়, সেই অভিজ্ঞতা রয়েছে।

ফাইনালের উইকেট নিয়েও চর্চা চলছে। পিচে হেভি রোল করা হয়েছে। যে উইকেটে ভারত-পাকিস্তান ম্যাচ হয়েছিল, সেই বাইশ গজেই রবিবারের মহারণ। পরের দিকে স্পিনাররা সাহায্য় পেতে পারেন। আমদাবাদ বিমানবন্দর থেকে শুরু করে রাস্তাঘাট, শপিং মল থেকে শুরু করে বাজার, রোহিতদের টিমহোটেল শুরু করে স্টেডিয়ামের পথ, একটাই প্রার্থনা। একটাই রিংটোন। কাপ দাও রোহিত… সবরমতীর তীরে ফেরাও ১২ বছর আগের আরব সাগরের পাড়ের সুখস্মৃতি…

Read More

Continue Reading

ক্রিকেট

ODI World Cup 2023: ইটভাটা মালিকের ছেলে, দেশের একমাত্র চায়নাম্যান স্পিনার, ওয়ার্নার, স্মিথদের ত্রাস কুলদীপ

Published

on

কলকাতা: শুধু কেকেআর-এর জার্সিতেই নয়, ভারতীয় জার্সিতেও একেবারে ধূমকেতুর গতিতে উত্থান হয়েছে কুলদীপ যাদবের। উত্তরপ্রদেশের (Uttar Pradesh) কানপুরে জন্ম তরুণ স্পিনারের। বাবা ছিলেন ইটভাটার মালিক। এক সাক্ষাৎকারে কুলদীপ (Kuldeep Yadav) জানিয়েছিলেন যে তাঁর বাবারই ইচ্ছে ছিল। ছোটবেলার কোচ কপিল পাণ্ডের অধীনে থেকে ক্রিকেটে হাতেখড়ি। কুলদীপ প্রথমে নাকি পেস বোলার হতে চেয়েছিলেন। তাঁর অনুপ্রেরণা ছিলেন জাহির খান ও ওয়াসিম আক্রম। তবে উচ্চতা ছোট হওয়ায় কোচের কথা মত স্পিনার হওয়ার জন্য নিজেকে গড়ে তোলেন ধীরে ধীরে।

Read More

Continue Reading
Advertisement
খেলা1 week ago

Gujrat Titans: পেস অ্যাটাকে শামির সঙ্গে উমেশ, নিলাম শাহরুখ খানকে নিয়ে কতটা শক্তিশালী হল গুজরাত শিবির?

খেলা1 week ago

Sunrisers Hayderabad: রেকর্ড দরে দলে কামিন্স, আছেন বিশ্বকাপ ফাইনালের নায়ক, এক নজরে নতুন মরসুমের সানরাইজার্স শিবির

দেশ1 week ago

Rashmika Mandanna Deepfake Case: রশ্মিকা মান্দানার ‘ডিপফেক’ ভিডিও-কাণ্ডে ৪ সন্দেহভাজনের খোঁজ পেল দিল্লি পুলিশ

খেলা1 week ago

Mitchell Starc: আইপিএলের ইতিহাসে সর্বােচ্চ দর পেয়েছেন, এবার নাইট সমর্থকদের জন্য বড় বার্তা স্টার্কের

দেশ1 week ago

Gauri Khan: রিয়েল এস্টেট প্রতারণা মামলায় শাহরুখ-পত্নী গৌরী খানকে নোটিস ED-র!

খেলা1 week ago

IND vs SA: জর্জির প্রথম ওয়ান ডে সেঞ্চুরি, দ্বিতীয় ওয়ান ডে-তে কেন হারতে হল রাহুলদের?

বিদেশ1 week ago

Donald Trump: পুনরায় প্রেসিডেন্ট হওয়ার অযোগ্য ট্রাম্প, ঘোষণা আমেরিকার আদালতের

দেশ1 week ago

Parliament News Update: সংসদের চেম্বার, লবি-গ্যালারিতে ঢুকতে পারবেন না সাসপেন্ডেড সাংসদরা, সার্কুলার জারি লোকসভার সচিবালয়ের

খেলা1 week ago

IPL Auction: আইপিএল নিলামে রেকর্ডের দিন বাংলার প্রাপ্তির ভাঁড়ার শূন্য, দল পেলেন না কেউই

কলকাতা1 week ago

Covid 19: সামনেই ক্রিসমাস, কোভিডের নতুন ভ্যারিয়েন্ট নিয়ে উদ্বিগ্ন রাজ্য সরকার

দুর্গা পূজা ২০২৩2 months ago

লালাবাগান সার্বজনীন দুর্গাপূজা

কলকাতা3 months ago

ফ্ল্যাট বিক্রির জালিয়াতির কেস এ অভিনেত্রী নুসরাতের কাছে আরও নথি চাইল ইডি

দেশ3 months ago

ভারত থেকে বেশকিছু কূটনীতিক দের সিঙ্গাপুর, মালয়েশিয়ায় সরালো কানাডা

কর্মখালি3 months ago

পুলিশে 412 ড্রাইভার নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি

দুর্গা পূজা ২০২৩3 months ago

সল্টলেকে বি কে ব্লক এর মণ্ডপ সজ্জা | দেখুন কিভাবে সেজে উঠছে |

দেশ3 months ago

বানজারা হিলস রোটারী ক্লাব এর উদ্যোগে মৃত্যু পথযাত্রী নিঃসঙ্গ মানুষ দের জন্য Sparsh Hospice

দেশ3 months ago

ব্যবসার ক্ষেত্রে ভারতের ভিসা সাসপেনশন কি প্রভাব ফেলতে পারে ?

কর্মখালি3 months ago

গ্রন্থাগারিক, পিটিআই এবং সহকারী অধ্যাপক পদের বিজ্ঞপ্তি

কলকাতা3 months ago

ED র অফিসার কি আদৌ প্রশিক্ষিত ? বিচার পতির সন্দেহ প্রকাশ |

আবহাওয়া3 months ago

জলবায়ু পরিবর্তন আরও ভূমিকম্প এবং আগ্নেয়গিরির অগ্ন্যুৎপাতের কারণ হতে পারে। জানুন কেন?

দুর্গা পূজা ২০২৩2 months ago

বিবেকানন্দ সার্বজনীন দুর্গোৎসব কমিটির দূর্গা পূজা

দুর্গা পূজা ২০২৩2 months ago

লালাবাগান সার্বজনীন দুর্গাপূজা

দুর্গা পূজা ২০২৩2 months ago

গোলাঘাটা সম্মিলনী পূজা কমিটির দুর্গাপূজা

দুর্গা পূজা ২০২৩2 months ago

হাতিবাগান সার্বজনীন দুর্গাপূজা

দুর্গা পূজা ২০২৩2 months ago

আহিরীটোলা সার্বজনীন দুর্গাপূজা

দুর্গা পূজা ২০২৩2 months ago

কুমোরটুলি সার্বজনীন দুর্গাপুজো

দুর্গা পূজা ২০২৩2 months ago

নলিনী সরকার স্ট্রীটের সার্বজনীন দুর্গাপুজো

দুর্গা পূজা ২০২৩2 months ago

আজাদহিন্দবাগ সার্বজনীন দুর্গোৎসব

দুর্গা পূজা ২০২৩2 months ago

মানিকতলা লোহাপট্টি চালতাবাগান এর দূর্গা পুজো

দুর্গা পূজা ২০২৩2 months ago

লেকটাউন অধিবাসী বৃন্দের দূর্গা পূজা

Trending